জেনে নিন যে ৫ অভ্যাস রপ্ত করলেই দূরে থাকবে হৃদরোগ - বরিশালের খবর-Barishaler Khobor

বাংলাদেশ, ১৬ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২

জেনে নিন যে ৫ অভ্যাস রপ্ত করলেই দূরে থাকবে হৃদরোগ - বরিশালের খবর-Barishaler Khobor

বাংলাদেশ সঙ্কটে পড়লে আ. লীগ সরকার মানুষের পাশে থাকবে: প্রধানমন্ত্রী বরিশালে ফ্যামিলি কার্ড বিতরন উজিরপুরে পুকুরে বিষ প্রয়োগ করে ২লক্ষাধিক টাকার মৎস্য নিধন দেশের ১১ অঞ্চলে ৬০ কি.মি বেগে ঝড়ের আভাস: আবহাওয়া অফিস মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক হচ্ছে, না পরলে শাস্তি চলেছ নিষেধাজ্ঞা : তারপরও পোর্টরোড মোকামে ট্রাকে ট্রাকে আসছে ইলিশ মসজিদে শিশু-বয়স্কদের যাওয়া নিষেধ: ধর্ম মন্ত্রণালয় বরিশাল ক্যাডেট কলেজে নব নির্মিত ক্যাডেট হাউসের উদ্বোধন করলেন সেনা প্রধান ঢাকা-ভাঙা এক্সপ্রেসওয়ের প্রতি কিলোমিটারে টোল ১০ টাকা: সেতু মন্ত্রণালয় দেশে ৪ বিভাগে ভারী বর্ষণের আভাস : আবহাওয়া অধিদ্প্তর


জেনে নিন যে ৫ অভ্যাস রপ্ত করলেই দূরে থাকবে হৃদরোগ

প্রকাশ: ২০ জুন, ২০২২ ১১:১৫ : অপরাহ্ণ

অনলাইন ডেস্ক : প্রতি বছর বিশ্বজুড়ে বহু সংখ্যক মানুষের মৃত্যু হয় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে। মানসিক চাপ থেকে অতিরিক্ত কর্মব্যস্ততা, অনিদ্রা কিংবা অন্যান্য আনুষাঙ্গিক রোগ অনেক ক্ষেত্রেই বাড়িয়ে দিতে পারে হৃদরোগের ঝুঁকি। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, হৃদরোগের আশঙ্কা কমাতে চাইলে দৈনন্দিন অভ্যাসে আনতে হবে কিছু পরিবর্তন।

১. পর্যাপ্ত ঘুমের বিকল্প নেই

পর্যাপ্ত ঘুমের অভাব হৃদরোগের অন্যতম বড় কারণ। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শরীর সুস্থ রাখতে দৈনিক ছয় থেকে আট ঘণ্টা ঘুম অবশ্যই প্রয়োজন।

২. নিয়ম করে শরীরচর্চা করুন

সংবহনতন্ত্র ভাল রাখতে নিয়মিত শরীরচর্চার বিকল্প নেই। তাছাড়া ওজন বেড়ে যাওয়ার সমস্যা থেকেও কিন্তু হৃদরোগের আশঙ্কা বাড়ে। তাই নিয়ম করে শরীরচর্চা করতেই হবে। সব সময়ে খুব ভারী শরীরচর্চা করতে হবে এমন কোনও কথা নেই। হালকা ব্যায়াম, হাঁটাহাঁটি কিংবা যোগাসন করলেও চলবে।

৩. ইচ্ছা মতো ওষুধ খাওয়া নয়

ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ, অতিরিক্ত ট্রাইগ্লিসারাইড এবং বাড়তি ওজনের মতো সমস্যা হৃদরোগের ঝুঁকি বাড়িয়ে দেয়। কিন্তু এই সমস্যাগুলোর জন্য অনেকেই নিজের ইচ্ছা মতো ওষুধ খান। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া ওষুধ খাওয়া বা ওষুধ বন্ধ করা, দুই-ই ডেকে আনতে পারে বড় বিপদ। বিশেষ করে যারা রক্তচাপের ওষুধ খান, তাদের এ বিষয়ে বাড়তি সতর্কতা নেওয়া জরুরি।

৪. অবহেলা করবেন না

হৃদযন্ত্রের নিয়মিত পরীক্ষায় অনেক ক্ষেত্রেই প্রতিরোধ করা যেতে পারে হৃদরোগ। কিন্তু অনেকেই বুকে ব্যথা, ক্লান্তি বা শারীরিক অস্বস্তির মতো লক্ষণগুলোকে গ্যাসের সমস্যা বলে এড়িয়ে যান। এই ধরনের সমস্যা অবহেলা করা অনুচিত। বিশেষত পরিবারে যদি হৃদরোগের ইতিহাস থাকে, তাহলে অবশ্যই নিয়মিত হৃদযন্ত্র ও সংবহনতন্ত্রের পরীক্ষা দরকার।

৫. খাদ্যাভাসে আনুন বদল

অতিরিক্ত তেল-মশলাসমৃদ্ধ খাবার প্রতিদিন না খাওয়াই ভাল। মাছ-মাংস যেমন খাচ্ছেন, তেমনই সঙ্গে সপ্তাহে অন্তত কয়েক দিন বেশি পরিমাণে সবুজ শাকসবজি ও ফাইবারযুক্ত খাবারও খেতে হবে। শাকসবজিতে কোলেস্টেরলের পরিমাণ কম, তাই হৃদরোগের ঝুঁকি কমে। খাদ্যতালিকায় ওট্স, ব্রাউন রাইস, বিন্স, মসুর ডাল, বাদাম, বীজ ও নানা ধরনের ফল রাখুন।

সূত্র : বাংলাদেশ প্রতিদিন

সকল নিউজ